বামাবোধিনী পত্রিকায় বাংলার সমকালীন সমাজের কিরূপ ঘটনার প্রতিফলন ঘটেছে?

বামাবোধিনী পত্রিকায় বাংলার সমকালীন সমাজের কিরূপ ঘটনার প্রতিফলন ঘটেছে?


ভূমিকা:
 উনিশ শতকে বাংলা ভাষায় প্রকাশিত যেসব সাময়িকপত্রে তৎকালীন সমাজের প্রতিফলন ঘটেছে সেগুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য বামাবোধিনী পত্রিকা।

প্রতিষ্ঠা: 
ব্রাহ্ম আন্দোলনের নেতা কেশবচন্দ্র সেনের অনুগামী তথা সিটি কলেজের অধ্যাপক উমেশচন্দ্র দত্ত তার অনুগামী কয়েকজন ব্রাহ্মণ কে নিয়ে বামাবোধিনী সভা প্রকাশিত হয় । এই সভায় বামাবোধিনী পত্রিকা প্রকাশ করেন এবং সম্পাদক ছিলেন উমেশচন্দ্র দত্ত।

উদ্দেশ্য: 

(১) নারী শিক্ষার প্রসার: 
বামাবোধিনী পত্রিকার প্রথম সংখ্যাতেই নারী শিক্ষার প্রচলন ও প্রসারের দাবি তোলেন। রক্ষণশীল সমাজ মনে করত নারীদের মধ্যে শিক্ষা আপতিত হলে নারী অঙ্গন বহির্ভূত বহির্মুখী হবে সংসারে দেখা দেবে নানা অশান্তি। এর পাল্টা যুক্তি তে বামাবোধিনী প্রচার চালায় নারী শিক্ষা না হলে সমাজ থেকে ব্যভিচার দূর হবে না।

(২) সামাজিক সংস্কার
সমাজে প্রচলিত বাল্যবিবাহ, অসম বিবাহ ও পণপ্রথার বিরুদ্ধে বামাবোধিনী পত্রিকা প্রচার চালিয়ে জনমত গড়ে তোলার চেষ্টা চালায়। এই পত্রিকাতে স্পষ্ট ভাষায় ঘোষনা করে যে বাধ্য বিবাহ ও অসম বিবাহ সমাজের পক্ষে যথেষ্ট ক্ষতিকর।

(৩) নারী অধিকার:
 বামাবোধিনী পত্রিকা ছিল সমকালীন বাংলার নারীর অবস্থা ও অধিকার কতখানি তা জানার গুরুত্বপূর্ণ দলিল হিসেবে চিহ্নিত। নারীরা শোন আমি অভি নামে তাদের অধিকার ও মনের কথা লেখতো এই পত্রিকাতে।

মূল্যায়ন: 
নিম্নে বলা সংগত হবে যে দীর্ঘদিন ৬০ বছরের গৌরবময় উপস্থিতি পর এই পত্রিকার প্রকাশ বন্ধ হলেও বাংলার নারী জাগরণের ইতিহাসে এই পত্রিকার ভূমিকা গৌরবজ্জল।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url