স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পটভূমি কি ছিল ? | Class 12 History Suggestions

Class 12 History Suggestions | History Important Long Questions Answers

স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পটভূমি কি ছিল


1947 খ্রিস্টাব্দে ভারতবর্ষ বিভাজিত হয়ে ভারত ও পাকিস্তান দুটি রাষ্ট্র সৃষ্টি হয়, ভারত বিভাগ সূত্রে বঙ্গ প্রদেশ ও দিখণ্ডিত হয় হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ পশ্চিমবঙ্গ ভারতের অন্তর্ভুক্ত এবং মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ পূর্ববঙ্গ পাকিস্তানের অন্তর্ভুক্ত হয় পূর্ববঙ্গের মুসলিম সম্প্রদায় সেদিন মহ আলি জিন্না কে তাদের রক্ষা কর্তা হিসাবে জাতির পিতা বলে। এবং তারা স্লোগান দিয়েছিলেন "এক জাতি মুসলমান"এক রাষ্ট্র পাকিস্তান এক নেতা কায়েদ এ আজম ।

‌ স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পটভূমি

পশ্চিম পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলনের ফলে পূর্ববঙ্গকে 1971 খ্রিস্টাব্দে পশ্চিম পাকিস্তান থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে সার্বভৌম স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্র হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। স্বাধীন বাংলাদেশের আত্মপ্রকাশের প্রেক্ষাপট হিসেবে বিভিন্ন ঘটনা কার্যকারী ভূমিকা পালন করে -

1. পূর্ব পাকিস্তানের উপর অত্যাচার
পূর্ব পাকিস্তানের উপর পশ্চিম পাকিস্তান সম্পূর্ণ আধিপত্য বিস্তার করেছিল অথচ দুইয়ের মধ্যে সব দিক দিয়েই আংগুল ছিল ,পূর্ব পাকিস্তানের বাঙালিরা তাই আধিপত্য মানতে বাধ্য ছিল না ।
  • A. প্রশাসনিক ক্ষেত্রে পূর্ব পাকিস্তানে প্রশাসনিক পদেই পশ্চিম পাকিস্তানদের বসানো হয়েছিল।
  • B. অর্থনৈতিক দিক দিয়ে পূর্ব পাকিস্তান পশ্চিম পাকিস্তানের শোষণের শিকার হয়েছিল শিল্পায়নে বৈষম্য করা হয়েছিল সব শিল্প গড়ে তোলা হয় পশ্চিম পাকিস্তানে।
  • C. সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে পশ্চিম পাকিস্তানের আধিপত্য বজায় রাখা হয়েছিল ।
  • D . সব ব্যাপারে পশ্চিম পাকিস্তান পূর্ব পাকিস্তানের বাঙালির ওপর আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করেছিল।

2. পূর্ব পাকিস্তান নির্বাচন
পাকিস্তানে সেনা প্রেসিডেন্ট জেনারেল ইয়াহিয়া খান ক্ষমতায় আসে 1969 খ্রিস্টাব্দে নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।
  • A. নির্বাচনে মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেযেছিলো।
  • B. ইয়াহিয়া খানের ঘোষণা অনুসারে 1970 খ্রিস্টাব্দের 7 ডিসেম্বর পাকিস্তানের দুই অংশে নির্বাচন হয়।
  • C. প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া খান নানা আছোলায় মুজিবুর রহমানের আওয়ামী লীগকে সরকার গঠন করতে দেননি।

3. পূর্ব পাকিস্তানের মুক্তিযুদ্ধ
26 শে মার্চ 1971 আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয় আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে পরিচালিত মুক্তিবাহিনী প্রচন্ড আত্মত্যাগের দৃষ্টান্ত স্থাপন করে বর্বর পাক সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যায়।

4. প্রবাশা সরকার প্রতিষ্ঠা
ইতিমধ্যে রাজাকার বাহিনী শান্তিপূর্ণ জমায়েত গ্রাম শহরের লোকালয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে 267 দিন ধরে নির্বাচনের হত্যালীলা চালায় এতে নিহতের সংখ্যা 10 লক্ষ্য থেকে 30 লক্ষ্য ছিল বলে অনেকে মনে করেন । অন্তত 8 লক্ষ্য বাঙালি নারী ধার্যতা হন। সরকার শীঘ্রই মুক্তিযুদ্ধের নেতা শেখ মুজিবর কে গ্রেপ্তার করে, জাতীয়তাবাদী নেতারা ভারতে আশ্রয় নিয়ে অস্থায়ী বাংলাদেশ সরকার প্রতিষ্ঠা করে।

5. ভারতের ভূমিকা
মুক্তি সংগ্রামের সময় বর্বর পাক সেনাবাহিনী পূর্ববঙ্গের ব্যাপকহারে গণহত্যা চালালে পাক হামলা থেকে বাঁচতে প্রায় এক কোটি শরণার্থী ভারতে আশ্রয় নেয়, এই পরিস্থিতি তে ভারত অস্ত্রসৈন দিয়ে পূর্ববঙ্গের মুক্তিযোদ্ধাদের সহায়তা এগিয়ে আসে।

6. পাক সেনা বাহিনীর আত্মসমর্পণ ও বাংলাদশের মুক্তি লাভ
ভারতীয় সেনাবাহিনী ও পূর্ববঙ্গের মুক্তি বাহিনীর সাঁড়াশি আক্রমণ এর পাক সেনাবাহিনী বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে শেষ পর্যন্ত পাক বাহিনীর সেনা প্রধান জেনারেল এ. এ. কে নিয়াজী 9300 সৈনশহ 16 ডিসেম্বর 1971 খ্রিস্টাব্দে রেসকোর্সে ভারতীয় সেনা প্রধান জেনারেল জগৎ সিং আরবের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণের দলিল স্বাক্ষর করেন।

16 ডিসেম্বর 1971 বাংলাদেশ স্বাধীন হয় এবং ওই দিনটি বিজয় দিবস হিসেবে পালিত হয়।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url