অশোকের ধর্মনীতির পরিচয় বর্ণনা দাও | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস | Class XI History

অশোকের ধর্মনীতির পরিচয় বর্ণনা দাও

সূচনা

হিন্দু ও বৌদ্ধ ভাবধারার উপর প্রতিষ্ঠিত ছিল অশোকের ধর্ম। অশোক এই ধর্ম সম্পর্কে মাস্কি লিপিতে উল্লেখ করেন। অশোকের ধর্ম মানবিক গুণের বিকাশ এর পরিচয় পাওয়া যায়।

ভিত্তি 

 অশোকের ধর্মের মূল ভিত্তি ছিল অহিংসা। যুদ্ধনীতি, প্রাণী হত্যা থেকে বিরত থাকা প্রভৃতি অহিংস আদর্শের পরিচয় দেয়।

প্রেক্ষাপট 

কলিঙ্গ যুদ্ধের ভয়াবহতা অশোকের মনো জগতে পরিবর্তন ঘটেছিল। বহু ঐতিহাসিক মনে করেন হিস্ট্রি অফ ইন্ডিয়া গ্রন্থে লেখা আছে সমকালীন আর্থসামাজিক পরিস্থিতিতে অশোকের মনে নতুন ধর্মদোর্শের জন্ম দেয়।

উদ্দেশ্য

অশোক তার ধর্মের পরিবর্তন ঘটিয়ে মানুষের ব্যক্তি ও সমাজ জীবন দুই ই পরিশুদ্ধ করতে চেয়ে ছিলেন। অশোক বিশ্বাস করতেন মানুষের পারিবারিক জীবন উন্নত হলে সমাজজীবন উন্নত হবে। স্বাভাবিক সমাজ গঠন করায় ছিল অশোকের ধর্মের প্রধান উদ্দেশ্য।

পালনীয় বিধি

1. ব্যক্তিজীবন

ব্যক্তিজীবনে পরিশুদ্ধির জন্য অশোকের ধর্মে
  • দয়াশীলতা
  • দানশীলতা
  • সততা
  • সুচিতা
  • ভদ্রতা
  • সৎকাজ
  • কৃতজ্ঞতা
ব্যক্তিজীবনে এই গুন গুলির কথা বলা হয়েছে

2. সমাজজীবন

  • প্রাণী হত্যা থেকে বিরত থাকা
  • প্রাণীর ক্ষতি না করা
  • বাবা মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা
  • বয়স্ক দের প্রতি শ্রদ্ধা
  • গুরুর প্রতি শ্রদ্ধা
  • ব্রাহ্মণ ও আত্মীয়দের সম্মান করা
  • স্বল্প সঞ্চয় প্রভৃতি
সমাজ জীবনে এই গুনগুলির উল্লেখ রয়েছে।

প্রকৃতি

অশোকের ধর্ম ছিল নৈতিক ও সামাজিক আচরণ বিধির সম্বন্ধয় , যাতে করে প্রাণিজগতের করুণা ছিল। অশোকের ধর্মে রয়েছে সংযম, করুণা , ও মানবিক ঔদার্য প্রভৃতি।

মন্তব্য

ইতিহাসবিদ মনে করেন যে অশোকের ধর্ম কোনো সংকীর্ণ ধর্ম ছিল না প্রতিষ্ঠিত সামাজিক ব্যবস্থার সুরক্ষায় ছিল এই ধর্মের প্রধান লক্ষ্য।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url